Home / স্বাস্থ্য / ক্যান্সারের এই লক্ষণগুলি অবহেলা করতে নেই
ক্যান্সারের লক্ষণ
image: google

ক্যান্সারের এই লক্ষণগুলি অবহেলা করতে নেই

ক্যান্সার একটি মরণব্যধি হিসেব পরিচিত। তবে এই রোগটির বেশ কিছু লক্ষণ রয়েছে যা আমাদের চোখের অগোচরে এড়িয়ে যায়। অথচ রোগ শুরু প্রাথমিক পর্যায়ে যদি এর সঠিক চিকিৎসা করাতে পারি তবে রোগের জটিলতা অনেকটা কমে আসে। তেমনই ক্যান্সারের বেশ কিছু লক্ষণ রয়েছে যা আমরা পাত্তা দেই না।

এক নজরে দেখে নিন ক্যান্সারের লক্ষণসমূহ:

ঘনঘন কাশি হওয়া: যদি আপনার মাঝে মাঝে কাশি হয় তবে ভয়ের কিছু নেই। কিন্তু যদি ঘনঘন কাশি হয় কিংবা কফের সাথে রক্ত চলে আসে তবে তা কিছুটা উদ্বেগের বিষয়। কাশি বেশিরভাগ সময় ভয়ের কারণ না হলেও তা কিছু কিছু ক্ষেত্রে ফুসফুস ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে। তাই এমনি হলে দ্রুত ডাক্তারের পরামর্শ নিতে ভুলবে না।

অন্ত্রের অভ্যাসের পরির্বতন: আপনার অন্ত্রের মধ্য নড়াচড়া যদি সহজ না হয় এবং মল স্বাভাবিকের চেয়ে বড় কিংবা অস্বাভাবিক মনে হয় তা মলাশয় ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে। এক্ষেত্রে ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা উচিৎ।

ঘনঘন অপ্রত্যাশিত ব্যথা হওয়া: ব্যাথা হলেই যে তা ক্যান্সারের লক্ষণ হবে এমনটি নয়। তবে তা যদি ঘন ঘন হতে থাকে তাহলে সমস্যা। আবার ক্রমাগত মাথা ব্যাথা হলে আবার ভাববেনা এটি ব্রেন ক্যান্সার। কিন্তু যদি বুকে নিয়মিভাবে ব্যাথা ফুসফুস ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে। তেমনি তলপেটে নিয়মিত ব্যাথাও ডিম্বাশয়ের ক্যান্সারের অন্যতম কারণ।

তিল বা আচিঁলের পরির্বতন: কোন কারণে যদি আপনার তিল কিংবা আচিঁলের পরির্বতন ঘটে তাহলে দেড়ি না করে অতি দ্রুত ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন। তবে সকল আচিঁল বা তিলের সাথে টিউমারের কোন সম্পর্ক নেই বললেই চলে।

মূত্রথলির অভ্যাসের পরির্বতন হওয়া: যদি আপনার মূত্র বা প্রসারেব সাথে রক্ত চলে আসে, তাহলে তা মূত্রথলি কিংবা কিডনির ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে। আবার মূত্রনালীতে সংক্রামণের কারণেও এমনটি হতে পারে। এ বিষয়ে যদি কোন সন্দেহ হয় তাহলে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

অপ্রত্যাশিত রক্তপাত: পিরিয়েডের সময় ছাড়া যদি অন্য কোন সময়ে যোনি হতে রক্ত হয় তবে তা সাভির্কাল ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে। আর মলাশয় হতে রক্তপাতও অনেক সময় ক্যান্সারের কারণ হতে পারে।

ক্ষতস্থান শুকাতে না চাইলে: কোন কারণে যদি আপনার শরীরের কোনস্থানে ক্ষত সৃষ্টি হলে তা যদি ২১ দিনের মধ্যে না শুকায় তাহলে বিষয়টি কিছুটা ভয়ের। এমন পরিস্থিতির শিকার হলে অতিদ্রুত ডাক্তারের পরামর্শ নিতে ভুলবে না। কেননা ক্ষতস্থান না শুকালে এটিও ক্যান্সারের অন্যতম লক্ষণ হিসেবে পরিগণিত হয়।

গিলতে সমস্যা হলে: যদি খাবার খেতে গিলতে গিয়ে সমস্যা অনুভূত হলে আপানার ঘাড় ও খাদ্যনালীর ক্যান্সারে হওয়া সম্ভবনা প্রবল থাকে। তাই এমন অবস্থায় উদ্বিগ্ন না হয়ে ডাক্তারের শরনাপন্ন হন।

দ্রুত ওজন কমে যাওয়া: অনেকেই আছেন শরীরর ওজন কমাতে নানা চেষ্টা করে থাকেন। কিন্তু কোন কারণে যদি আপনার হঠাৎ করে ওজন কমে যায় তাহলে ভাবনার বিষয়।

তথ্য: সংগ্রহীত।

Check Also

হার্ট অ্যাটাক এড়াতে নিয়মিত খান এই খাবারগুলি

নানা প্রকার শারীরিক জটিল সমস্যাগুলির মধ্যে অন্যতম হলো হৃদরোগ বা হার্ট অ্যাটাক অন্যতম। শরীরে কোলেস্টেরলের ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!