Home / স্বাস্থ্য / ডায়াবেটিস ও রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে তেঁতুল পাতা
image: google

ডায়াবেটিস ও রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে তেঁতুল পাতা

তেঁতুল নামটি শুনলেই জিভে যেন জল আসে আমাদের। তবে এই তেঁতুলের নানাবিধ গুণ রয়েছে। বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে শরীরের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গের কর্মক্ষমতা বাড়াতে তেঁতুলের জুড়ি মেলা ভার। তেঁতুলে উপস্থিত রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান দেহের ভিতর প্রদাহ কমানোর মধ্যে দিয়ে একাধিক রোগকে দূরে রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। সেই সঙ্গে দৃষ্টিশক্তির উন্নতিতে, ত্বকের পরিচর্যায় এবং আরও নানা শারীরিক উন্নতিতে এই ফলটির জুড়ি মেলা ভার।

অতি পরিচিত এই ফল ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা হ্রাস পায়। তেঁতুলে উচ্চ পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট আছে যা ত্বকের পক্ষে ভীষণই উপকারী । কিডনি ড্যামেজ এবং ক্যান্সার রোধেও তেঁতুলের ভূমিকা আছে৷ তেঁতুল গাছের পাতা এবং ছালের অ্যান্টি সেপটিক এবং অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়ালের গুণের জন্য ক্ষত সারাতে কাজে লাগে এই তেঁতুল।

পেট ব্যথা ও কোষ্ঠকাঠিন্যর মতো সমস্যা থেকে সমাধানে তেঁতুল অপরিসীম ভূমিকা পালন করে তাকে। তেঁতুলে রয়েছে টারটারিক অ্যাসিড, ম্যালিক অ্যাসিড এবং পটাশিয়ামের উৎস যা কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। এছাড়াও রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন সি থাকার । যার কারণে তেঁতুলে খাওয়া শুরু করলে শরীরে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট বৃদ্ধি পেয়ে থাকে। যা মানব শরীরের জন্য দারুন উপকারি।

তেঁতুল ক্ষতিকারক আলট্রা ভায়োলেট এর হাত থেকে ত্বককে বাঁচাতে সাহায্য করে। এছাড়াও যাদের অ্যাকনে আছে তাদের জন্যেও উপকারী তেঁতুল। এছাড়াও তেঁতুলে উপস্থিত হাইড্রক্সি অ্যাসিড ত্বকের এক্সফলিয়েশন করতেও সাহায্য করে যার ফলে মরা কোষ উঠে যায় এবং ত্বক উজ্জ্বল ও সুন্দর দেখায়।

পেপটিক আলসার বেশির ভাগ ক্ষেত্রে পেটে এবং ক্ষুদ্রান্ত্রে হয়। এই আলসার খুবই বেদনাদায়ক। রিসার্চ করে দেখা গেছে তেঁতুলের বীজের গুঁড়ো নিয়মিত খেলে পেপটিক আলসারের সেরে যাচ্ছে। আসলে তেঁতুলে উপস্থিত পলিফেনলিক কম্পাউন্ড আলসার সারিয়ে তোলে বা হতে দেয় না।

এছাড়াও তেঁতুলের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এতটা শক্তিশালী হয়ে ওঠে যে, শুধু সংক্রমণ নয়, ছোট-বড় কোনও রোগই ধারে কাছে ঘেঁষতে পারে না। তেঁতুলকে কাজে লাগালে শরীরে হাই-ড্রোক্সিসিট্রিক অ্যাসিড বা এইচ সি এ এর মাত্রা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। এই উপাদানটি শরীরে উপস্থিত অতিরিক্ত চর্বি ঝরিয়ে সার্বিকভাবে ওজন কমাতে বিশেষ কমিয়ে থাকে। একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে তেঁতুল খাওয়া শুরু করলে শরীরে ফাইবারের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। ফলে ক্ষিদে কমে যায়। ফলে ওজন কমতে শুরু করে।

Check Also

হার্ট অ্যাটাক এড়াতে নিয়মিত খান এই খাবারগুলি

নানা প্রকার শারীরিক জটিল সমস্যাগুলির মধ্যে অন্যতম হলো হৃদরোগ বা হার্ট অ্যাটাক অন্যতম। শরীরে কোলেস্টেরলের ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!