Home / স্বাস্থ্য / রক্তপাতহীন বেরিয়াট্রিক সার্জারিতে হার্ট থাকবে নিরাপদ
বেরিয়াট্রিক সার্জারি
image: 123rf

রক্তপাতহীন বেরিয়াট্রিক সার্জারিতে হার্ট থাকবে নিরাপদ

চিকিৎসা বিজ্ঞানে এক নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে যাকে বলে বায়োটিক সার্জারি। হার্টের সমস্যায় মানুষের মৃত‌্যুর হার অনেক বেশি। তবে অনেকে মনে করেন, হার্ট অ‌্যাটাক বা হার্টের অন‌্যান‌্য সমস্যা পুরুষের বেশি হয় এবং নারীদের কম হয়। এ ধারণা পুরোপুরি ভুল। কেননা বিপদ আসলে যে কারো আসতে পারে। হার্টের সমস্যার কারণ খুঁজতে গিয়ে চিকিৎসকরা সবচেয়ে বেশি দেখেছেন স্থূলতা বা মোটা শরীরর। বাজে খাদ‌্যাভ‌্যাসের কারণে এ সমস্যা হয়ে থাকে স্‌থুলতা বা মোটা শরীর।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন যে, রাস্তায় তৈরি খাবারের ওপর আসক্তির পাশাপাশি শারীরিক পরিশ্রম কম করা এবং মানসিক চাপের কারণে ঘুম কম হওয়ার জন‌্য বেশিরভাগ মানুষই অতিরিক্ত মোটা হয়ে যাচ্ছেন। শরীরের অতিরিক্ত মেদের কারণে মূলত হার্টের সমস্যা হয়ে থাকে। কারণ খুঁজতে গিয়ে দেখা গেছে যে, বেশি মোটা হলে রক্তচাপ, রক্তে চিনি ও শর্করার পরিমান অনেক বেড়ে যায়। আর এগুলো বাড়লে তার ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে হার্টে। স্থুলতার কারণে আমাদের দেশে হার্টের অসুখে আক্রান্তদের সংখ‌্যা এক লাফে কয়েকগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

আর মূলত সে কারণে হার্ট সবল রাখতে দ্রুত জীবনযাপন পরিবর্তন করে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা জরুরি। প্রায় প্রতিটি বাড়িতেই দু’য়েকজন করে হার্টের অসুখের রোগী আছে। এটা কিন্তু আশনি বিপদ সঙ্কেত আমাদের জন্য। যা মোটেও কাম্য নয় যে কারো পরিবারে। সুস্থ পরিবার, সুস্থ সমাজ গড়ে তুলতে সবারই উচিত হার্টের যত্ন নেওয়া। এজন‌্য‌ প্রথমে খেয়াল রাখতে হবে ওজন যেন মাত্রাতিরিক্ত না বেড়ে যায়। কেননা এই ওজনেই হলো যতো সমস্যার মূল!

যেভাবে ‍ওজন কমাবেন: প্রধাণত রোগীর শারীরিক অবস্থা কতটা জটিল, তার ওপর নির্ভর করছে স্থুলতার ও ওজন নিয়ন্ত্রণ চিকিৎসা। ওষুধ দিয়ে বা জীবনযাপনে পরির্তন করেও স্থুলতা নিয়ন্ত্রণ করা যায়। স্থুল বা মোটা শরীরের রোগীদের প্রায় সকলেরই ডায়াবেটিস থাকে। সে কারণে এগুলোর নিয়ন্ত্রণের জন‌্য ওষুধ খাওয়ার পাশাপাশি মেদ কমানোরও ওষুধ দেওয়া হয়। সেই সাথে খাওয়াদাওয়ার অভ‌্যাস পরিবর্তন করে ডায়েট মেনে চলার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। অতিরিক্ত খেতে নিষেধ করা হয়। এই সব নিয়ম পালন করেও মোটা হওয়া হাত হতে বাঁচা যায় এবং ওজন নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

এতেও যদি মোটা হওয়া রুখতে ব্যর্থ হন বা সুস্থ না হলে অতিরিক্ত মোটাদের হার্টের অসুখ এড়িয়ে চলার উপায় আধুনিক চিকিৎসাশাস্ত্রে রয়েছে। আর সে চিকৎসাটি ব্যয়বহুল। রোগীরা নিশ্চিন্তে বেরিয়াট্রিক সার্জারি করিয়ে কয়েক মাসের মধ‌্যে ওজন কমিয়ে ফেলতে পারেন। একদম আগের মতো ফিট হয়ে ঝরঝরে শরীর ফিরে পাওয়া যায়। ফরে হার্ট আটাকের মত ঝুঁকিও থাকবে না।

বেরিয়াট্রিক সার্জরি: যদি কারো ওজন যদি ১০০ কেজি কিংবা ৯০ হয়ে থাকে তাহলে, সে ক্ষেত্রে ওষুধ খেয়ে, জীবনধারা পরিবর্তন করেও কিছুতেই পর্যাপ্ত ওজন কমাতে না পারেন; তার পরেও চিন্তা করবেন না। এক্ষেত্রে ওজন কমানোর সবচেয়ে ভালো উপায় বেরিয়াট্রিক সার্জারি।

এটি কোনো রকম পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া ছাড়াই এই ল‌্যাপারোস্কোপিক অপারেশন করে মেদ কমে যায় স্বল্প সময়ে। বিনা রক্তপাতে এই সার্জারি করে ফিট হতে বেশি সময়ও লাগে না। আর কিছু নিয়ম মেনে চললে এই নতুন ওজন আর অস্বাভাবিকভাবে বাড়েও না। অনেক মোটা ব্যক্তির শরীরে উপচে পড়া মেদের কারণে আরো নানা রকম অসুখ থাকে। সেজন‌্য তারা শরীরচর্চা করে রোগা হতে পারেন না।

আবার অনেকে বয়স বেড়ে যাওয়ায় বেশি কায়িক পরিশ্রম করে ওজন ঝরাতে পারেন না। সে ক্ষেত্রে তাদের জন‌্য ভালো ব্যাপার বেরিয়াট্রিক সার্জারি।  এছাড়া যাদের স্থুলতার কারণে হার্টে প্রভাব পড়তে শুরু করেছে, তাদের দ্রুত সুস্থ করতে বেরিয়াট্রিক করানোই ভালো। সার্জারির পরে ৮৫% ডায়াবেটিস রোগী সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে যান। কোলেস্টেরলের মাত্রাও নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। ফলে হার্টের অসুখের ঝুঁকি অনেক কমে যায়। ওজন কমে যাওয়ায় রোগী আগের চেয়ে বেশি শারীরিক পরিশ্রম করেত পারেন। যার ফলে হার্টও ভালো থাকে। চিকিৎসকরা বলছেন, এতে করে আয়ুও বাড়ে।

ডাক্তারা আরও জানিয়েছেন যে, মোটা হওয়ার কারণে যে সব নারীর বন্ধ‌্য‌াত্বের সমস‌্যা দেখা দেয়, তারাও এই সার্জারি করে ওজন কমিয়ে সহজে মা হতে পারেন। এছাড়া লিভারের অসুখ, ডায়াবেটিসের কারণে কিডনির অসুখ থাকলেও বেরিয়াট্রিক করিয়ে দ্রুত সুস্থ হওয়া সম্ভব। তাই আপনার যদি এই ধরণের সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে দেড়ি না করে আজই আপনার ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করুন।

কেননা আধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতিতে এই সার্জারি শরীরের কোন ক্ষতি করে না।

Check Also

হার্ট অ্যাটাক এড়াতে নিয়মিত খান এই খাবারগুলি

নানা প্রকার শারীরিক জটিল সমস্যাগুলির মধ্যে অন্যতম হলো হৃদরোগ বা হার্ট অ্যাটাক অন্যতম। শরীরে কোলেস্টেরলের ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!